কোম্পানি সিলের নিবন্ধন লাগবে না

ব্যবসা-বাণিজ্য সহজীকরণে কোম্পানি নিবন্ধনের সময় সিলের নিবন্ধন করানোর বাধ্যবাধকতা তুলে দিয়ে কোম্পানি (সংশোধন) বিল- ২০২০ পাস করেছে সরকার।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বিলটি প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়। এর আগে বিলটির উপর বিরোধী দল জাতীয় পার্টি ও বিএনপি সদস্যদের আনা জনমত যাচাই ও বাছাই কমিটিতে পাঠানোর প্রস্তাব নাকোচ হয়ে যায়।

বিলে বিদ্যমান আইনের ১২৯ ধারার পরিবর্তে কোন কোম্পানি বাংলাদেশের বাইরে নিজ কার্য সম্পাদনের জন্য ক্ষমতাপ্রাপ্ত প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়ার বিধান করা হয়েছে। ওই প্রতিনিধি কোম্পানির দেয়া সময় বা সময় উল্লেখ না দেয়া থাকলেও ক্ষমতা অর্পণ প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত প্রতিনিধির ক্ষমতা বহাল থাকবে।

বিলে বিদ্যমান আইনের ২২৫ ধারায় উল্লেখিত ‘তাহা কোম্পানির সীলমোহর দ্বারা মোহরাঙ্কিত হওয়ার প্রয়োজন হইবে না’ শব্দগুলো বিলুপ্ত করা হয়েছে।

বিলে বিদ্যমান আইনের ২৬২ ধারার দফা (ঘ) এ উল্লেখিত ‘এবং তদুদ্দেশ্যে যখন প্রয়োজন হয় তখন কোম্পানির সাধারণ সীলমোহর ব্যবহার করা’ শব্দগুলো বিলুপ্ত করা হয়েছে।

এছাড়া বিলে বিদ্যমান আইনের ৩৬৩ ধারায় উল্লেখিত এবং একটি সাধারণ সীলমোহর’ শব্দগুলো বিলুপ্ত করা হয়।

জাতীয় পার্টি কাজী ফিরোজ রশীদ, ফখরুল ইমাম, মুজিবুল হক, পীর ফজলুর রহমান, শামীম হায়দার পাটোয়ারী ও বিএনপির বেগম রুমিন ফারহানা বিলের ওপর জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনী প্রস্তাব আনলে তা কন্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।