মুর্শিদাবাদে নির্মাণাধীন দ্বিতীয় সেতু ভেঙে নিহত ৩

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুর্শিদাবাদ জেলার ফারাক্কায় নির্মাণাধীন দ্বিতীয় সংযোগ সেতু ভেঙে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে একজন প্রকৌশলী ও একজন ওই প্রকৌশলীর সহযোগী। অন্যজন শ্রমিক। গুরুতর আহত আটজন।

নিহত প্রধান প্রকৌশলী হলেন শ্রীনিবাস রাও (৩৫)। বাড়ি অন্ধ্র প্রদেশে। আর তাঁর সহকারী হলেন শচীন প্রতাপ (৩০)। তাঁর বাড়ি উত্তর প্রদেশে। গুরুতর আহত হয়েছেন রঞ্জন মেহেতা, মুকেশ পান্ডাসহ চারজন। তাঁরা মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

রঞ্জন ও মুকেশ পান্ডার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য গতকাল রাতেই তাঁদের কলকাতার পিজি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাঁদের বাড়ি বিহারে। অন্যরা মালদহ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী এই সেতু ভেঙে পড়ার ঘটনায় গভীর দুঃখ প্রকাশ করে হতাহত ব্যক্তিদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন।

ফারাক্কায় দ্বিতীয় সংযোগ সেতুর নির্মাণকাজ চলছিল। এই সেতুর এক পাড়ে মুর্শিদাবাদ আর অন্য পাড়ে মালদহ জেলা। নিচ দিয়ে বয়ে চলেছে গঙ্গা নদী। ফারাক্কার অপর পাড়ে মালদহের বৈষ্ণবনগর থানা এলাকায় তৈরি হওয়া সেতুর দুটি স্তম্ভের ওপর ঢালাই দেওয়ার জন্য কাজ চলছিল। গতকাল সন্ধ্যায় হঠাৎ ভেঙে পড়ে নির্মাণাধীন সেতুটি। স্থানীয় লোকজন বলেন, ওই সময় সেতুটিতে প্রকৌশলীসহ ২০ জন কাজ করছিলেন। সন্ধ্যার দিকে আচমকাই প্রথম ও দ্বিতীয় স্তম্ভের অংশবিশেষ ভেঙে পড়ে। শ্রমিকসহ প্রকৌশলীরা চাপা পড়েন।

মালদহের পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেন, উদ্ধারকাজ শুরু হয়েছে। আহত ব্যক্তিদের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।