আর একজনেরও গায়ে আঁচড় লাগলে পুরো সিরিয়ায় হামলা হবে: এরদোগান

বিদ্রোহীদের হাত থেকে তাদের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ ইদলিব পুনরুদ্ধারের যে চেষ্টা সিরিয়া করছে, তা নিয়ে তুরস্কের সঙ্গে সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে যাওয়ার হুমকি তৈরি হয়েছে।

গত ১০ দিনে ইদলিবে বিদ্রোহীদের টার্গেট করে সিরিয় সৈন্যদের হামলায় কমপক্ষে ১২ জন তুর্কি সৈন্য নিহত হবার ঘটনায় ক্ষেপেছে তুরস্ক।

মঙ্গলবারের পর বুধবারও সিরিয়াকে হুমকি দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তায়্যিপ এরদোগান। খবর বিবিসি’র।

তুরস্কের পার্লামেন্টে ক্ষমতাসীন একে পার্টির এক সভায় এরদোগান বলেন, ‘আর একটি তুর্কি সৈন্যের গায়ে আঁচড় লাগলে সিরিয়ার রক্ষা নেই।’

প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা এএফপি এবং রয়টরস বলছে, ‘আমি ঘোষণা করছি যে এখন থেকে একজন তুর্কি সৈন্যও যদি আহত হয়, তাহলে সিরিয়ার যে কোনো জায়গায় তাদের সৈন্যদের ওপর আঘাত করা হবে। যে কোনো পন্থায়, তা আকাশ পথে হোক আর স্থলপথে, কোনো রকম দ্বিধা ছাড়াই ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

শুধু সিরিয়াকেই হুঁশিয়ার করে ক্ষান্ত হননি এরদোগান। আজ বুধবার প্রথম বারের মত সরাসরি তিনি রাশিয়ার তীব্র সমালোচনা করেছেন। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘রাশিয়া ইদলিবে “গণহত্যা” চালাচ্ছে।’

সিরিয়ায় রাশিয়ার একটি বিমান ঘাঁটি রয়েছে। বেশ কিছুদিন ধরেই ইদলিবের আকাশের নিয়ন্ত্রণ রাশিয়ার হাতেই এবং বিদ্রোহীদের অবস্থানে বিমান হামলাগুলো করছে প্রধানত রুশ যুদ্ধবিমান।

সুতরাং সিরিয়ার যে কোনো জায়গায় প্রয়োজনে আকাশ পথে সিরিয়ার সৈন্যদের টার্গেট করার হুমকি দিয়ে এরদোগান পরোক্ষভাবে সিরিয়ার মিত্র রাশিয়াকেও রক্তচক্ষু দেখাচ্ছেন।