যুব ক্রিকেটারদের মুশফিকের লাল সালাম

পুরো বিশ্বকে অবাক করে নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিশ্বজয় করেছে বাংলাদেশের যুব টাইগাররা। দেশের জন্য প্রথম বিশ্ব শিরোপা জিতে দেশের ইতিহাসে নিজেদের অমর করে তুলেছে আকবর-ইমন-রাকিবুলরা।

বহু কাঙ্ক্ষিত সেই ট্রফি নিয়ে যুবা টাইগারদের দেশে ফিরবে বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৫ টায়। তাদের এই স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে ঘিরে দেশের কোটি ক্রিকেটভক্ত ও সাধারণ মানুষের মধ্যে রয়েছে চরম উত্তেজনা।

এয়ারপোর্ট থেকে মিরপুরের সবুজ গালিচা, পুরো রাস্তা তাদের বরনে সাজানো হয়েছে। যুব টাইগাররা শুভকামনা পেয়েছেন জাতীয় দলে খেলা ‘বড়ভাইদের’ কাছেও।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে যুব টাইগারদের প্রশংসায় ভাসিয়েছেন সাকিব-মুশফিক-মাশরাফিরা। তবে বুধবার সকালে যুবাদের প্রতি অন্যরকম এক ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন দেশসেরা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম।

জিম্বাবুয়ে সিরিজকে সামনে রেখে নিজের মতো একান্ত অনুশীলনে ব্যস্ত সময় পার করছেন মুশফিকুর রহিম। আজ সকালে মিরপুরে অনুশীলনে এসে স্টেডিয়ামের দেয়ালে টানানো যুবাদের শুভেচ্ছা পোস্টারের সামনে দাড়িয়ে তাদের ‘লাল সালাম’ জানিয়ে নিজের ফেসবুক একাউন্টে মুশফিক লেখেন, ‘ভাইয়েরা, তোমাদের নিয়ে গর্বিত’।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ১৩তম আসরের ফাইনালে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জিতে যুবা টাইগাররা। বিশ্বকাপ জয়ী দলটির এবার দেশে ফেরার পালা। কারণ তাদের জন্য অপেক্ষা করছে এই বাংলার আকাশ-বাতাস আর ১৬ কোটি মানুষ। অপেক্ষা করছে তাদের বাবা মা-ও।

জানা গেছে, চ্যাম্পিয়নদের বিমানবন্দরেই অভ্যর্থনা দেবে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বিসিবি। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও পরিচালকরা উপস্থিত থেকে যুবাদের বরণ করে নেবেন ফুল দিয়ে।

এর মধ্যে হোম অব ক্রিকেট ছেয়ে গেছে যুবাদের ছবি সম্বলিত ব্যানারে। বর্ণিল আলোক সজ্জায় সাজানো হয়েছে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের চারদিক। জ্বলছে লাল-সবুজ রঙের বাতি।

বিসিবির তথ্যমতে, বিমানবন্দর থেকে ক্রিকেটাররা সবাই চলে আসবে মিরপুরে। সেখানে তাদের নিয়ে কেক কাটবেন বিসিবি সভাপতি। তারপরই বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা মুখোমুখি হবে সংবাদমাধ্যমের।

তাদের জন্য রাতে ডিনারের ব্যবস্থা রাখছে বিসিবি। যুবা টাইগারদের মধ্যে যাদের বাসা ঢাকাতে তারা রাতেই চলে যাবেন আর বাকিরা বিসিবি একাডেমিতে অবস্থানের পর পরদিন সকালে গ্রামের বাড়িতে ফিরবেন।