লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং এর চার্টার নাইট বর্ণাঢ্যভাবে উদযাপন সম্পন্ন।

এম এ আহমেদ আরমান।
চট্টগ্রাম উত্তর জেলা প্রতিনিধি

লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং এর ৬১ তম চার্টার নাইট অনুষ্ঠান ০২ এপ্রিল ১৯ ইং রোজ মঙ্গলবার রাতে নগরীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ক্লাব প্রেসিডেন্ট লায়ন সাধন কুমার ধরের সভাপতিত্বে ও লায়ন ডাক্তার মেজবাহ উদ্দীন তুহিন এবং লায়ন আয়েশা হক শিমুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন লায়ন নাসিরুদ্দিন চৌধুরী। তিনি এদেশে লায়নিজমের বিকাশে প্রাক্তন গভর্নরদের ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, একটি সেবা সংগঠনের শতবর্ষ টিকে থাকা কঠিন ব্যাপার। তবে আমাদের ইন টাইম, ইন সার্ভিসের মাধ্যমে দীর্ঘদিন মানুষের হৃদয়ে অবস্থানের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। এ সেবা আমাদের ক্ষণিকের নয়। শত সহস্র সাফল্যের গল্প মানুষকে জানাতে হবে। আমাদের মনে রাখতে হবে এটা আমাদের ব্র্যান্ডিং। তিনি বলেন, বহু মানবিক মানুষের হাত ধরেই লায়ন্স ক্লাবের পতাকা উড়ছে। সকলকে সমাজের কম সৌভাগ্যবান মানুষদের জন্য কাজ করে যেতে হবে। সদ্য প্রাক্তন জেলা গভর্নর লায়ন মনজুর আলম, ডিজি (ইলেক্ট) লায়ন কামরুন মালেক, ফার্স্ট ভাইস গভর্নর (ইলেক্ট) ডাক্তার সুকান্ত ভট্টাচার্য, কেবিনেট সেক্রেটারি লায়ন জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী ও কেবিনেট ট্রেজারার লায়ন মোসলেহ উদ্দীন খান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।
প্রাক্তন জেলা গভর্নরদের মধ্যে লায়ন শফিউর রহমান, লায়ন এম এ মালেক, লায়ন এ কাইয়ুম চৌধুরী, লায়ন এম শামসুল হক চৌধুরী, লায়ন নাজমুল হক চৌধুরী, লায়ন রূপম কিশোর বড়ুয়া, লায়ন পি আর সিনহা, লায়ন আলহাজ রফিক আহমদ, লায়ন ডা, শ্রী প্রকাশ বিশ্বাস, লায়ন মোহাম্মদ কবির উদ্দীন ভূইয়া, লায়ন এস এম ইসহাক, লায়ন শাহ এম হাসান, লায়ন মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম, লায়ন প্রফেসর এমডিএম কামাল উদ্দীন চৌধুরী, লায়ন এস এম শামসুদ্দীন, লায়ন সিরাজুল হক আনসারী, লায়ন মোস্তাক হোসেন ও লায়ন শাহ আলম বাবুল সহ অসংখ্য লায়ন ও লিও দের উপস্থিতিতে মিলনায়তন কানায় কানায় ভরপুর ছিল।

ডিজি ইলেক্ট কামরুন মালেক পিডিজিবৃন্দকে লায়নিজমের ভ্যানগার্ড আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, ১৯৫২ সালে ২ এপ্রিল চট্টগ্রামে যাত্রা শুরু হয়েছিল লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাংয়ের। সে একইদিনে আমরা এ জন্মদিন উদযাপন করছি। এজন্য ক্লাবের সকল সদস্যকে ধন্যবাদ জানাই। এ ক্লাবের বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হয়েছে। সময় হয়েছে আমার আমিত্বে মিশে যাওয়ার। দুই হাজার ৮০০ লায়ন ও এক হাজার লিওদের স্বাগত জানিয়ে সবার উদ্দেশ্যে বলতে চাই, গভর্নর হতে গেলে ক্যাবিনেটে থাকতে হয় না। অনেককে আমি রাখতে না পারলেও মনে কষ্ট নেবেন না। তিনি আর ও গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু দিক-নির্দেশনামূলক কথা বলে বক্তব্য ইতি টানেন।
কেক কাটা, রাতের খাবার ভোজন, ম্যাজিক অনুষ্ঠান,সম্মাননা স্মারক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে চার্টার নাইট বর্ণাঢ্যভাবে সম্পন্ন হয়।