নীলফামারী নীলসাগরে বারুনী স্নানে এসে একযুবক কিশোর নিখোঁজ। নীলফামারী নীলসাগরে বারুনী স্নানে এসে কিশোর নিখোঁজ

নীলফামারী প্রতিনিধি

নীলফামারীর নীলসাগরে (বিন্নাদিঘিতে) গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হয়েছে সুমন রায়(১৫) নামে এক কিশোর। বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।ঐতিহ্যবাহী নীলসাগর পুকুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের বারুণী স্নানে সাঁতার কাটতে নেমে সুমন চন্দ্র রায় (১৫) নামের এক যুবক নিখোঁজ হয়েছে । জেলার সদর উপজেলার খোকশাবাড়ী ইউনিয়নের মোনাগঞ্জ গ্রামের সুকুমার চন্দ্র রায়ের পুত্র সদ্য এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন সুমন চন্দ্র রায়। বাকি তিন জন হলেন একই গ্রামের বিপুল চন্দ্র রায় (১৬), অনুকুল চন্দ্র রায় (১৭) ও উত্তম কুমার চন্দ্র (১৬) মিলে চ্যালেন্জ করে পুুকুরের পশ্চিম পার থেকে পূর্ব পারে সাঁতার দিয়ে আসার জন্য । কিন্তু বিশাল পুকুর সাঁতরিয়ে পার হওয়ার আগেই মাঝ পুকুরে তলিয়ে যায় সুমন। অপর ৩জন কোনরকমে পাড়ে উঠতে পারলেও পাড়ে উঠেই তারাও জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসেবা দেয়া হয়। গোড়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেয়াজুল ইসলাম জানান, নীলসাগর পুকুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের শুরু হওয়া ৩ দিন ব্যাপী বারুণী স্নানে এসে ঐ ৪ বন্ধু সাঁতরিয়ে পুকুর পার হতে গিয়ে এ দূর্ঘটনা ঘটে। রংপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল সকাল থেকে পুকুরের তলদেশে নিখোঁজ সুমনের সন্ধান শুরু করে।
ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরদল পাঁচ ঘণ্টা উদ্ধার চেষ্টা চালিয়েও সন্ধান পাননি তার।
নীলসাগরের অফিস সহায়ক হায়দার আলী জানান, ভোর থেকে বারুনীর স্নানের জন্য বিভিন্ন স্থান থেকে সনাতন ধর্মের পূজারীরা এখানে আসেন।
আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে আমরা জানতে পারি, সুমন নামে এক কিশোর স্নান করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছে।বিষয়টি সার্ভিসকে জানানো হলে দুজন ডুবুরি উদ্ধার চেষ্টা শুরু করেন সকাল ৯টার দিকে। নীলফামারী ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র কর্মকর্তা এনামুল হক জানান, দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত আমরা দিঘিতে উদ্ধারকাজ চালাই। এর মধ্যেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।বিষয়টি নিশ্চিত করে নীলফামারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোমিনুল ইসলাম মোমিন জানান, চার বন্ধু মিলে নীলসাগরে বারুনী স্নানের জন্য এসেছিল তারা। তিনজন উঠে আসতে পারলেও সুমন নিখোঁজ থাকে। তাকে উদ্ধারের জন্য চেষ্টা অব্যাহত রাখা হয়েছে।