‘স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রতিনিধিত্ব করছেন ড. কামাল’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রতিনিধিত্ব করছেন বলে অভিযোগ করেছে ‘একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধা’ নামে একটি সংগঠন।  

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধাদের করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন সংগঠনের চেয়ারম্যান আবীর আহাদ। 

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মো. হান্নান হোসেন, সহসভাপতি মহিবউল ইসলাম ইদু, সৈয়দ গোলাম মোস্তফা প্রমুখ। 

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন জোটকে নির্বাচনে বিজয়ী করতে মুক্তিযোদ্ধাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখারও আহ্বান জানানো হয়েছে।

আবীর আহাদ বলেন, ঐক্যজোট বলতে কিছু বুঝি না। আমরা একটা কথাই বুঝি, ড. কামাল হোসেন যেটা করছেন, সেটা জামায়াত-বিএনপির প্রতিনিধিত্ব করা। ঐক্যজোট বা ঐক্যফ্রন্ট বলতে কিছুই নেই। মূল প্রসঙ্গটা হলো, তিনি জামায়াত ও বিএনপিকে পুনর্জীবিত করছেন।

তিনি আরও বলেন, ড. কামাল হোসেন যে পথে হাঁটছেন, এটা মুক্তিযুদ্ধের পথ নয়। এটা স্বাধীনতা-প্রগতির পথ নয়। এটা ধর্মান্ধতা, স্বাধীনতার বিরোধিতা ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তির প্রভাব হিসেবে আমাদের মধ্যে আবির্ভূত হয়েছে। যেটা আমাদের পীড়া দেয়, আমরা দুঃখ পাই।

বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে ড. কামালের ভূমিকা স্মরণ করে আবীর আহাদ বলেন, ড. কামাল হোসেন আমাদের ইতিহাসের অঙ্গ। কিন্তু আমরা আজকে বিস্মিত হই কী কারণে, কেন, কিসের মোহে, কিসের লোভে বা কিসের প্ররোচনায় তিনি আজকে পথভ্রষ্ট হয়ে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তির প্রতিনিধিত্ব করছেন। এই বিষয়টা আমরা মেনে নিতে পারছি না।’

লিখিত বক্তব্যে আবীর আহাদ আরও বলেন, আমরা জনগণকে হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলতে চাই, বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় আসা মানেই মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশের পতন। তারা ক্ষমতায় আসা মানেই আবার ইতিহাস বিকৃত হবে। বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের নাম-নিশানা মুছে যাবে। বঙ্গবন্ধুকন্যা বাংলাদেশকে উন্নয়নের যে মহাসড়কে নিয়ে যাচ্ছেন, সেটাকে চিরতরে থামিয়ে দেওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে দেশে চলমান উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় দলমত নির্বিশেষে শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোট দিতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।