জয়ে বছর শুরু, পরাজয়ে শেষ

কথায় আছে-শেষ ভালো যার, সব ভালো তার। ভালো শুরুর পরও সেই ভালোয় ভালোয় শেষ করতে পারেনি টাইগাররা।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয় দিয়ে বছর শুরু বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। জানুয়ারিতে ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত (বাংলাদেশ-শ্রীলংকা-জিম্বাবুয়ে) ত্রিদেশীয় সিরিজে ওয়ানডে ম্যাচে জয় দিয়ে পথ চলা শুরু হয় টাইগারদের। জয়ে শুরু হওয়া বছরের শেষ হলো টি-টোয়েন্টিতে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ৫০ রানে পরাজয়ের মধ্য দিয়ে।

শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে প্রথমে ব্যাট করে ১৯০ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে উইন্ডিজ। টার্গেট তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ১৪০ রানে অলআউট সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন ক্রিকেট দল।

পরাজয়ে শেষ হলেও এই বছরে দেশে এবং বাইরে দুর্দান্ত খেলেছে বাংলাদেশ দল।

এই বছরে ৮টি টেস্ট ম্যাচে খেলে ৩টিতে জয়, একটিতে ড্র এবং চার টেস্টে হেরে যায় বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে ১৯টি ম্যাচ খেলে ১৩টিতে জয় পায় টাইগাররা, হেরে যায় ৬ ম্যাচে।

টি-টোয়েন্টির সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে ১৬ ম্যাচে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। এর মধ্যে ৬টিতে জয় পায় টাইগাররা হেরে যায় ১২ ম্যাচে।

এই বছরে তিন ফরম্যাটে সবমিলিয়ে ৪৩টি ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ দল। এই ৪৩ ম্যাচের মধ্যে ২২টিতে জয় পায় টাইগাররা।

বছরের দুর্দান্ত খেলা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘দুইটা ফাইনাল (ত্রিদেশীয় সিরিজ ও এশিয়া কাপ) বাদ দিলে এই বছরে আমাদের অনেক ভালো গেছে। তবে এশিয়া কাপের ফাইনালে জিততে পারলে ভালো হতো। এখন শেষটা ভালো করলে এই বছরটা খুব ভালো যাবে। বিশেষ করে সামনের বছর শুরু থেকে অনেক চ্যালেঞ্জ আছে।