বিবিসির খবরের ‘নিরপেক্ষতা’ যাচাই করবে রাশিয়া

বিবিসি ওয়ার্ল্ড নিউজ এবং বিবিসি ওয়েবসাইটে রাশিয়া সম্পর্কিত খবরের ‘নিরপেক্ষতা’ যাচাই করা হবে বলে জানিয়েছে রাশিয়ার গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

ক্রেমলিনের একজন মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, বিবিসির রাশিয়া বিষয়ক খবর নিয়ে সম্প্রতি নানা প্রশ্ন উঠেছে। বিশেষ করে সিরিয়াতে রাশিয়ান সরকারের ভূমিকা নিয়ে যে খবর বিবিসিতে প্রচারিত হয় সেগুলো নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ।

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বাহিনীর প্রতি রাশিয়ার সমর্থন রয়েছে। ফেসবুকে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া যাখারোভা বলেছেন, ‘অনেক আগেই বিবিসির খবর পর্যবেক্ষণ করা প্রয়োজন ছিল।’ এছাড়া ব্রিটিশ সরকার রাশিয়ান গণমাধ্যমের ব্যাপারে ‘নির্লজ্জভাবে’ হস্তক্ষেপ করে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রাশিয়ার গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রক সংস্থার এমন সিদ্ধান্তের জবাবে বিবিসি জানিয়েছে, ‘বিশ্বের অন্য আর যেকোনো স্থানের মতোই রাশিয়াতেও বিবিসি সেখানকার আইনকানুন মেনেই দর্শকদের খবর পরিবেশন করে।’

এদিকে, বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) ব্রিটিশ গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রক সংস্থা অফিস অফ কমিউনিকেশনস বা অফকম অভিযোগ করে, ক্রেমলিন সমর্থিত আন্তর্জাতিক টেলিভিশন নেটওয়ার্ক ‘রাশিয়া টুডে’ বা আরটি তাদের সাতটি অনুষ্ঠানে নিরপেক্ষতা ভঙ্গ করেছে। এ বছর মার্চের ১৭ থেকে ২৬ এপ্রিলের মধ্যে এসব ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে অফকম।

ইংল্যান্ডের সালিসবারিতে একজন সাবেক রাশিয়ান গুপ্তচর সেরগেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ের উপর নার্ভ গ্যাস হামলার ঘটনায় আরটির কভারেজ নিয়ে সমালোচনা করেছিলো অফকম। যুক্তরাজ্য ও তাদের পশ্চিমা মিত্ররা এই হামলার জন্য রাশিয়াকে দায়ী করে আসছে। স্ক্রিপাল বিষয়ক খবরের ক্ষেত্রে রাশিয়ার আন্তর্জাতিক টেলিভিশন নেটওয়ার্ক আরটি নিরপেক্ষ ছিলো না বলে মনে করে অফকম।