বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে জমি পেল ৭ প্রতিষ্ঠান

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটির ইন্ডাস্ট্রিয়াল জোনে সাতটি প্রতিষ্ঠানকে প্লট বরাদ্দ করেছে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সভাকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে জমি বরাদ্দের চুক্তি করেন হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম। এ চুক্তির ফলে আগামী ৪০ বছরের জন্য বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে ডেটা সফট, আমরা হোল্ডিংস, ডেভ নেট লিমিটেড, স্পেকট্রাম ইঞ্জিনিয়ারিং কনসোর্টিয়াম লিমিটেড, মিডিয়া সফট ডেটা সিস্টেম লিমিটেড, ইউ ওয়াই সিস্টেম লিমিটেড জমি বরাদ্দ পেল।

হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী ডেটা সফট ২ দশমিক ৭৫ একর, আমরা হোল্ডিংস ৩ দশমিক ৫০ একর, ডেভ নেট ২ একর, স্পেকট্রাম ইঞ্জিনিয়ারিং কনসোর্টিয়াম ২ একর, মিডিয়া সফট ১ একর, ইউ ওয়াই সিস্টেম ১ একর জমি বরাদ্দ পেল।

এর আগে গত ২৮ নভেম্বর এসবি টেল এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে ৮ দশমিক ১৬ একর জমি বরাদ্দ দিয়েছে হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। তারা সেখানে মোবাইল ফোন সংযোজন ও উৎপাদন করবে।

হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জমি বরাদ্দ পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো হাইটেক পার্কে হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার, আইওটি, বিপিও, ট্রেনিং সেন্টার, ডেটা সেন্টার, মোবাইল ফোন সংযোজন ও উৎপাদন, গবেষণা নিয়ে কাজ করবে। এতে ৫ হাজার ২৫০ জনের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। প্রতিষ্ঠানগুলো এখানে ৫৫৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে।

দেশের প্রথম হাইটেক পার্ক হচ্ছে বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি। এখানে কাজ শুরু করার জন্য প্রথম পর্যায়ে প্রাপ্ত ২৩২ একর জমিকে পাঁচটি ব্লকে ভাগ করে উন্নয়ন করা হয়। পার্কসংলগ্ন ৯৭ দশমিক ৩৩ একর জমি বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ বরাদ্দ পেয়েছে। বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের নির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সরাসরি বিনিয়োগকারীদের অনুকূলে প্রথম পর্যায়ে গত ২৫ সেপ্টেম্বর নয়টি ও দ্বিতীয় পর্যায়ে সাতটি প্রতিষ্ঠানকে জমি বরাদ্দ করা হয়েছে।

সচিব হোসনে আরা বেগম বলেন, কালিয়াকৈরে ৩৫৫ একর জমির ওপর স্থাপিত বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটি বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প। বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের আওতায় নির্মিত হাইটেক পার্কগুলোয় বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার জন্য বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এখানে বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার জন্য লন্ডনে সেমিনার, রোড শোসহ বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে।