একটি লাশের বদলে ১০টি লাশ ফেলে দেয়ার আহ্বান তারেকের, জনমনে আতঙ্ক(ভিডিও)

 আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন শাখায় নিজের বক্তব্য প্রচার করে আসছেন লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে এবার তিনি দলের নেতাকর্মীদের লাশের বদলে লাশ ফেলে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। ভিডিও বার্তাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় জনমনে তৈরি হয়েছে আতঙ্ক।

সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিও বার্তায় তারেক রহমান দলের কর্মীদের প্রতি লাশ ফেলে দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সবাইকে এই শপথ জানাচ্ছি- একটি লাশের বদলে ১০টি লাশ ফেলো।

তারেক রহমানের এমন ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্যকে দেশদ্রোহিতার শামিল বলে বর্ণনা করে একে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশের জন্য অশনি সংকেত হিসেবে উল্লেখ করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, ২০১৪ সালের ফর্মুলা অনুযায়ী ক্ষমতা দখল করতেই তারেক রহমান এমন ভয়ানক আহ্বান জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে রাজনৈতিক বিশ্লেষক বিভুরঞ্জন সরকার বলেন, এই লাশের আহ্বানই প্রমাণ করে সম্প্রতি পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই’য়ের সঙ্গে তারেকের বৈঠক এবং নির্বাচনে সহিংসতামূলক কর্মকাণ্ডের প্রস্তুতি। যেখানে বর্তমান সরকার একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছেন, সেখানে একজন দণ্ডিত অপরাধী বিদেশে বসে এমন ন্যাক্কারজনক তৎপরতা চালাচ্ছে। এটি নির্বাচন ও জনমনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে এবং শঙ্কার সঞ্চার ঘটাবে।

বিষয়টি ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক এ আরাফাত রহমান বলেন, দলীয় অন্তর্কোন্দলের মুখে পড়ে নির্বাচনে কোন দিশা না পেয়ে তারেক রহমান অবৈধ উপায়ে ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করছেন। যা তার চরিত্রের পরিস্ফুটন। যিনি ক্ষমতার জন্য লাশ ফেলে দেয়ার মতো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন তার কাছ থেকে দেশের জন্য আর কী আশা করা যায়? সুতরাং এ বিষয়ে সরকারের জরুরি পদক্ষেপ প্রয়োজন। প্রয়োজন জনগণের সচেতনতা ও নাশকতা রুখে দেয়ার প্রস্তুতি।

এমন প্রেক্ষাপটে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, নাশকতায় জড়াতে, লাশ ফেলে দিতে নেতাকর্মীদের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আহ্বানের পরেও বিবেক বিসর্জন দিয়ে দেশের মানুষ যদি তারেক রহমানের মতো গড ফাদারকে ক্ষমতায় বসানোর পাপাচার করেন তবে তা হবে স্মরণকালের শ্রেষ্ঠ ভুল। বিএনপির মতো একটি সন্ত্রাসী দল তথা তারেক রহমানকে রুখে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিতে হবে আমাকে-আপনাকেই! কেননা, দেশ আমাদের মা!

ভিডিও…