‘এই মুহূর্তে আমিই বড় তারকা, প্রচারে অন্য তারকার দরকার নেই’

হাইকোর্টে গিয়ে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়া আলোচিত অভিনেতা হিরো আলম মনে করেন এই মুহূর্তে তিনিই সবচেয়ে বড় তারকা।তার নির্বাচনী প্রচারে অন্য কোনো তারকার অংশগ্রহণের দরকার নেই।

প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় খুশি বগুড়া-৪ আসনের এই স্বতন্ত্র প্রার্থী এখন সবচেয়ে খুশি। আপনি একজন তারকা আপনার নির্বাচনী প্রচারে অন্য কোনো তারকাকে আমন্ত্রণ জানাবেন কি-না এমন প্রশ্নে এক প্রতিক্রিয়ায় হিরো আলম বলেন, আমি তো মনে করি এই মুহূর্তে আমিই সবচেয়ে বড় তারকা। আমি কোনো এলাকায় প্রচারে গেলে দু-চার-দশ গ্রামের লোক হিরো আলমকে দেখার জন্য ভিড় করে।তাহলে অন্য তারকাকে ভাড়া করে আমার প্রচারে আনার দরকার পড়ে বলে আমি মনে করছি না।

সোমবার নির্বাচন কমিশনের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার হিরো আলমের মনোনয়ন গ্রহণের নির্দেশ দেন।

আদেশের পর হিরো আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি এখন খুব খুশি। হাইকোর্টে যে ন্যায় বিচার পাওয়া যায়, তা প্রমাণ হলো। ইসি যে বলছিল, আমার ভোটার তালিকা ভুয়া, তা আজ মিথ্যা প্রমাণ হয়েছে। ইসিকে হাইকোর্ট দেখিয়ে দিলাম।’

এর আগে গত ৬ ডিসেম্বর প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে হিরো আলমের আপিল নামঞ্জুর করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

নির্বাচন ভবনে ৪৩ নম্বর সিরিয়ালে হিরো আলমের প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার আবেদনের শুনানি হয়। এ সময় তিনি সেখানে উপস্থিত ছিলেন। নিজের প্রার্থিতা পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন।

শুনানি শেষে নির্বাচন কমিশন তার মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন।

এরপর এক তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় হিরো আলম ক্ষোভ প্রকাশ করেন।ইসির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করবেন বলে জানান হিরো আলম।

তিনি বলেন, হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, এত সহজে মাঠ ছেড়ে যাচ্ছি না। উচ্চ আদালতে আপিল করবো।আমি এখনই উচ্চ আদালতে যাচ্ছি।

৬ ডিসেম্বরই হাইকোর্টে রিট করেন হিরো আলম।আজ সেই রিটের আদেশে তার মনোনয়ন গ্রহণের নির্দেশ দেন আদালত।

জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন হিরো আলম। মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

গত রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিলের ঘোষণা দেন।

হিরো আলম সোমবার নির্বাচন কমিশনে প্রার্থিতা ফিরে পেতে আপিল করেন।

আপিলের রায়ে হিরো আলমের প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যায়।

মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ায় কষ্ট পেয়েছিলেন হিরো আলম। তার সেই কষ্ট আরও বাড়ল আপিলের রায়ে।

আপিল শেষে হিরো আলম গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, ষড়যন্ত্র করে আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। মনোনয়নপত্র বাতিলের পেছনে কোনো কারণ নেই।

ইউটিউবে বিচিত্র অভিনয়, গান আর নাচ দেখিয়ে দেশব্যাপী আলোচনায় আসেন হিরো আলম। তার প্রকৃত নাম আশরাফুল আলম।