ভোলার বাপ্তায় জহিরুলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কায়দায় হামলার অভিযোগ “আহত “১

স্টাফ রিপোর্টার::
ভোলার বাপ্তা ইউনিয়নের জহিরুলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কায়দায় হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়
সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ডোং পট্টি  দিঘীর পাড় এলাকার জাহাঙ্গীরের ছেলে মোঃ জহিরুল ইসলামের (৩৫)এর সাথে একই এলাকার মোহাম্মদ নুর ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ নুরুদ্দিন( ৩৬)এর উপর সন্ত্রাসী কায়দায় হামলার ঘটনা ঘটে।

মোঃ নুর ইসলাম জানান ৪ নভেম্বর বুধবার  রাত সাড়ে দশটার সময়
জহিরুল ইসলাম তার বোন জামাই নিজাম এর সাথে ঝগড়া হয়।
আমি জহিরুল ইসলাম কে ঝগড়া থামাতে বলল্লে আমার সাথে কথা কাটাকাটি হয় একপর্যায়ে সে আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি দিয়ে
আমার ঘাড়ে আঘাত করে।
এবং অতিরিক্ত আঘাতের ফলে আমি সেখানে অজ্ঞান হয়ে যাই।
পরে স্থানীয়রাসহ আমার পরিবারের লোকেরা আমাকে সেখান থেকে উদ্ধার করেন।
নুর ইসলামের স্ত্রীর জান্নাত জানান
আমরা চিৎকার চেঁচামেচি শুনে ছুটে যাই সেখানে গিয়ে আমার স্বামীকে অজ্ঞান অবস্থায় পাই তখন আমাদের বাসায় নিয়ে আসি।
পরে পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার কারণে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছি বর্তমানে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।
আমি প্রশাসনের কাছে এর সঠিক বিচার চাই।
স্থানীয়রা জানান
জহিরুল ইসলাম বদমেজাজী সে কাউকে দাম দেয় না যার তার সাথে ঝগড়া বাজিয়ে দেয় সে  এর আগে কয়েকজনের সাথে এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে আমরা প্রশাসনের কাছে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে বিচারের দাবী জানাই।