বাউফলে সরকারি শিক্ষা ভবনে অবৈধ গ্রামীণফোনের টাওয়ার।

বাউফল প্রতিনিধি,

পটুয়াখালী বাউফলের ধুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনে সরকারের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে মোবাইল নেটওর্য়াক টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে। বিনিময়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাসুমা আক্তার ও সহকারী শিক্ষক সৈয়দ আরিফুর রহমানের বিরুদ্ধে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ভবনের ছাদে প্রায় ছয় বছর আগে গ্রামীণফোনের টাওয়ার স্থাপন করা হয়। টাওয়ার স্থাপনের জন্য উপজেলা প্রশাসন/ শিক্ষা অফিসকে অবহিত না করে গোপনে মোটা অংকের টাকার বিনিময় বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষিকা ও সহকারী শিক্ষক টাওয়ার স্থাপনের অনুমতি দেয়। এমনকি ম্যানেজিং কমিটির কেউ এ ব্যাপারে অবহিত নন।
একাধিক শিক্ষক ও অভিভাবকেরা বলেন, সম্পূর্ণ বে-আইনিভাবে এই টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে। এতে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।
এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষক সৈয়দ আরিফুর রহমান বলেন, পরীক্ষামূলকভাবে টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে। কারো কাছ থেকে কোন টাকা নেওয়া হয়নি।
অপরদিকে প্রধান শিক্ষিকা বলছেন, আমি কিছু বলতে পারব না। টিও (উপজেলা শিক্ষা অফিসার ) স্যার বলতে পারবেন।
এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. রিয়াজুল হক বলেন, টাওয়ার সরিয়ে নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। টাওয়ার স্থাপনের বিষয়ে আমাকে জানানো হয়নি