লোহালিয়া কুড়িপাইকা সরকারি প্রাঃ বিদ্যালয় লক্ষাধিক টাকার রেন্ট্রিগাছ আত্মসাতের প্রচেষ্টা

লোহালিয়া কুড়িপাইকা সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয় লক্ষাধিক টাকার রেন্ট্রিগাছ করোনা মহামারির সুযোগে কিছু অসাদু ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও সাবেক সভাপতি সাধারন মানুষের চোখে ধুলো দিয়ে আত্মসাতের প্রচেষ্টায় লিপ্ত।
কুড়িপাইকা এলাকাবাসীর পক্ষে গত ২৫ জুন জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ সুত্রে পাওয়াযায় পটুয়াখালীর লোহালিয়া ইউনিয়নের কুড়িপাইকা তথা প্রতাপপুর বাজারটি অতি পুরাতন জনবহুল গুরুত্বপূর্ণ একটি হাট-বাজার বাজার সংলগ্ন ১৯৪৩ সালের ৩৮ নং কুড়িপাইকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় অবস্থিত যে স্কুলের নিজস্ব জমিতে হাজার ১৯৪৩সালে বিভিন্ন গাছ রোপন করা হয় এর মধ্যে সবচেয়ে বড় রেন্ডি গাছ পরিবেশ রক্ষায় বান্ধব বটবৃক্ষ নামে এই স্কুলের বড় আকারের রেন্ট্রি গাছটি খ্যাতি রয়েছে । স্কুলের শিশুরা সহ অত্র এলাকার হাট বাজারের পথিক মানুষের ছায়া দানের সেবায় গাছটি মিলনমেলার ঘাটি। উক্ত গাছটির কেউ কোন সময় আচর লাগতে দেয় নাই । এক্ষেত্রে স্কুল পরিচালনা পরিষদের সাবেক ইউপি সদস্য আবুল হোসেন সভাপতি দায়িত্ব নিয়ে কুবুদ্ধি পরামর্শে দুর্নীতির আশ্রয় উন্নয়নের সুযোগ অনেক জায়গা থাকা সত্ত্বেও ভবন করার পরিকল্পনা আত্ম ষড়যন্ত্রে বুদ্ধি নিয়ে পরিবেশ রক্ষায় বিপয্যায় ঘটিয়ে গাছটি কেটে ভবন করার স্থান নির্ধারণ করে এবং ওই অপরাধী আবুল হোসেন তথা পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও তার সহযোগী দল গাছটি কেটে নিয়ে কোনো কারণে আত্মসাৎ করতে না পারলে গাছটি কাটা অবস্থায় রাস্তায় দীর্ঘদিন ফেলে রেখে পরে পরিচালনা পরিষদের পরিবর্তন হলে ২০২০ সালে স্কুল নতুন পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ইউপি সদস্য হায়দার আলী ও সাবেক সভাপতি ও বর্তমান সভাপতি একত্রিত হয়ে পূর্বপরিকল্পিত আত্মসাতের কু পরিকল্পনায় এবং বর্তমান সভাপতির শক্তির ও ক্ষমতার দাপটে আইন কানুন হাতে তুলে নিয়ে কেটে ফেলা রেন্ট্রি লক্ষ টাকার গাছ আত্মসাৎ করে সরিয়ে নিয়ে স্থানীয় হারুন মুন্সির স্ব-মিলে নিয়ে যায় যা অত্র এলাকার জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে । অপরদিকে স্কুল বন্ধ থাকায় ছাত্র-শিক্ষক এবং বিস্ময়কর সুযোগে আত্মসাতের ব্যবস্থা নিলে প্রতিবাদের কর্ণধার নাই। উল্লেখ্য গাছটি কাটার আইনগত ব্যবহার স্কুল রেজুলেশনসহ এলাকার জনগণের কোন সম্মতি নাই। দুই মহাদুর্নীতিবাজ তাদের অপরাধের সাহায্যকারীদেরকে নিয়ে গাছটি আত্মসাৎ করার ভাগ বন্টন এর চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে ভয়ঙ্কর ক্ষেত্রে গাছ চুরির ঘটনায় আলী হায়দার মাঝি ইউপি সদস্য ও সভাপতি পরিচালনা পরিষদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও আবুল হোসেন হাওলাদার সাবেক ইউপি সদস্য ও সাবেক সভাপতি এদের দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবিতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ,প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও পটুয়াখালী সদর থানার ইনচার্জ ,বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের লিখিত অভিযোগ করে এলাকাবাসি।