উপকূলে৭ নম্বর মহা বিপদ সংকেত। যে কোন সময় হতে পারে রেড এলার্ট জারী। মোকাবিলায় নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। Noboalo

কলাপাড়া, পটুয়াখালী প্রতিনিধি।। পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপ সাগর ও তৎ সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান রত ঘূর্ণিঝড় আম্ফান ইতি মধ্যেই অধিকতর শক্তি সঞ্চয় করে সুপার সাইক্লোন এ রূপান্তরিত হয়েছে। নিজকে তৈরী করে নিয়েছে বাংলাদেশের উপকূলে ধ্বংশজগ্গ চালাতে। শক্ত করে কোমর বেধে যাত্রা করেছে সরাসরী বাংলাদেশ অভি মুখে। গতি নির্ধারন করেছে ২২৫ হইতে ২৪৫ কিলোমিটার ঘন্টায়।এ গতি সে যে কোন সময় আরও বাড়াতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া বিদরা তাই মংলা ওপায়রা সমুদ্র বন্দর কে ৭ নম্বর ও কক্স বাজার ও চট্রগ্রাম সমুদ্র বন্দর কে ৬ নম্বর মহা বিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে । কলাপাড়া উপজেলা সমুদ্র তীরবর্তি হওয়ায় বিরূপ পরিবেশ তৈরী হলে যেকোন সময় হতে পাড়ে রেড এলার্ট জারী। তাই উপজেলা প্রশাষনও দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা কমটির সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জমান খান বলেন সুপার সাইক্লোন আম্ফানের সম্ভব্য ক্ষতির হাত থেকে উপজেলার সাধারন জনগনের জান মাল রক্ষার্থে ব্যাপক প্রস্ততি নেয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৮/৫/২০২০ইং তারিখ সকাল থেকে উপজেলা মিলনায়তনে কয়েক দফায় বৈঠক অনুস্ঠিত হয়।বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন মহলের দায়ীত্ব প্রাপ্ত প্রশাষনিক ব্যাক্তি, মিডিয়া যেমন ইলেকট্রনিক,প্রিন্ট,অনলাইন,এর দায়ীত্ব প্রাপ্ত সাংবাদি কবৃন্দ,ও এনজিও সংস্থার উপরোস্ত দায়ীত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা সহ প্রমুখ ব্যাক্তি বর্গ। বৈঠকে উপরে উল্লেখিত ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের সম্ভব্য ক্ষয় ক্ষতি এরাতে ও মানুষের জানমাল রক্ষার্থে প্রস্ততি মুলক বিভিন্ন বিষয় এর উপর উপস্থিত ব্যাক্তি বর্গ কে উপজেলা নির্বাহীঅফিসার মহদয়,ও দুর্যোগ প্রস্ততি কমিটির সহকারী পরিচালক মহদয় দিক নির্দেশনা মুল বক্তব্য রাখেন। এতে উল্লেখ করা হয় সুপার সাইক্লোন ঘূর্ণিঝড় আম্ফান এর ক্ষতির হাত থেকে সাধারন মানুষের জানমাল নিরাপদ রাখতে উপজেলায় ১৬৩ টি ঘূর্ণিঝড় সহনীয় সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত করা হয়েছে। আরও যোগ করা হয়েছে ঘূর্ণিঝড় সহনীয় বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা সহ অন্যান্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এতে সরবরাহের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে পর্যাপ্ত শুকনো খাবার সহ শিশু খাদ্য।আলো সরবরাহের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে মোমবাতি এবং দিয়াশলাই। নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে শেল্টার নিতে। রাখতে বলা হয়েছে ফ্যামিলি ওয়াইজ সামাজিক দুরত্ব বজায়। বক্তৃতায় এনজিও, ও মিডিয়া কর্মিদের সুপার সাইক্লোন আম্ফানের কারনে করনিয় বিষয়ের উপর আলোক পাত করা হয়। খোলা হয় সুপার সাইক্লোন আম্ফানের কারনে বিভিন্ন বিষয়ে জানতে কনট্রোল রুম নাম্বার। এখানে সাংবাদিকদের আরও একটি বিষয় জানিয়ে দেয়া হয় যে ১৯ /৫/২০২০ ইংরেজি তারিখ সকালেই উপজেলার ২ টি পৌরসভা সহ উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন এর সি,পি,পি,এর,টিম লিডার ও উপজেলার বিভিন্ন সংগঠনের সেচ্ছাসেবক দের সুপার সাইক্লোন আম্ফানের সম্ভব্য ক্ষয়ক্ষতি এরাতে সাধারণ জনগনকে সাইক্লোন সেল্টারে নিয়ে যেতে, সংকেত প্রদর্শন, প্রচার,সহ বিভিন্ন দায়ীত্ব পালন করার জন্য মিটিং এর আয়োজন করে তাদের দায়ীত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হবে। এখানে আরও উল্লেখ করা হয় সুপার সাইক্লোন এর কারনে ও আমাবস্যার প্রভাবে উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী ও তাদের অদূরবর্তি দ্বিপ ও চর সমুহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪ হতে ৫ ফুট বা এর চেয়ে অধিকতর উচ্চতা র জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে। তাই উপজেলার বেরী বাদের বাহিরে বসবাস রত সমস্ত জনগণকে সরিয়ে নিরাপদ আশ্রয় নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সি,পি,পি সদস্য ও সেচ্চাসেবক দের নির্দেশ প্রদান করা হয়। আবহাওয়া বিদরা জানিয়েছে যে সুপার সাইক্লোন আম্ফান ১৯ শে মে ২০২০ শেষ রাত হতে ২০ মে ২০২০ বিকেল/ সন্ধার মধ্যে বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে পারে। ঘূর্ণিঝড় আম্ফান উপকূল অতিক্রম কালে উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী ও তার অদূর বর্তি দ্বিপ ও চর সমুহের নিম্নাঞ্চলে ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষন সহ ঘন্টায় ১৪০ -১৬০ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে তাই উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান রত সমস্ত নৌকা ও মাছ ধরার ট্রলার কে অতিধ্রুত নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে বলা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয় থাকতে বলা হয়েছে।