বৈষম্যহীন, সুশৃঙ্খল সমাজের স্বপ্ন দেখেন পুলিশ অফিসার রইছ উদ্দিন ।

মোঃ রইছ উদ্দিন। ডাক নাম রিপন। জন্ম ১৯৮৬ সালের ১লা জানুয়ারি, টাংগাইল জেলার মধুপুর উপজেলার মালাউড়ি গ্রামে।পিতার নাম মোঃ মিনহাজুর রহমান, মাতা রমিছা খাতুন।২ কন্যা সন্তানের পর নিম্ন মধ্যবিত্ত ঘরে রইছ উদ্দিনের জন্ম যেন বাবা মায়ের ভাংগা ঘরে অবাধ চাঁদের আলোর উছলানি। বাবা মিনহাজুর রহমান স্বপ্ন দেখেন ছেলেকে মানুষের মত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার। গ্রামের স্কুলের প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে স্বনামধন্য মধুপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২০০০ সালের এস এস সি পরিক্ষায় ঢাকা বোর্ডের মানবিক বিভাগ থেকে মেধা তালিকায় ৯ ম স্থান অধিকার করে কৃতিত্বের সাথে পাশ করেন রইছ উদ্দিন। এরপর বাবা মিনহাজুর রহমান স্বপ্ন দেখেন ছেলেকে ঢাকায় রেখে সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করানোর। সেই লক্ষ্যে ভর্তি করান নটরডেম কলেজের মানবিক বিভাগে। কিন্তু বিধি বাম ঢাকায় যাওয়ার কিছুদিনের মধ্যে ডেংগু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে নটরডেম কলেজ থেকে অব্যাহতি নিয়ে আবার চলে আসেন গ্রামে। ভর্তি হোন মধুপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একাদশ শ্রেনিতে।সেখান থেকে ২০০২ সালে আবারও ঢাকা বোর্ডের মানবিক বিভাগ থেকে এইচ এস সি মেধা তালিকায় ৭ম স্থান অধিকার করেন।এরপরে ভর্তি হোন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে। ইংরেজি বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করে পার্টটাইম লেকচারার হিসেবে চাকরি নেন মিরপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে। এরপরে ২৮ তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ২০১০ সালের ১ লা ডিসেম্বর সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন।বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি সারদা, রাজশাহী থেকে দীর্ঘ ১ বছরের কঠিন প্রশিক্ষণ শেষ করে উক্ত একাডেমিতেই প্রশিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন রইছ উদ্দিন।এরপর সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) হিসেবে রংপুরে এবং সহকারী পুলিশ সুপার (খাগড়াছড়ি সদর সার্কেল) হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।২০১৬ সালের ৩০ নভেম্বর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি প্রাপ্ত হোন এবং ২০১৭ সালে জানুয়ারি মাসে এলিট ফোর্স র‍্যাবে যোগদান করেন। র‍্যাব ৮, বরিশালের অধীনে ফরিদপুর ক্যাম্পের (ফরিদপুর ও রাজবাড়ী জেলা) কোম্পানি অধিনায়ক হিসেবে কৃতিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করেন।দায়িত্ব পালনের কৃতিত্বের স্বীকৃতিস্বরুপ ২০১৭ সালে “IGP’s Exemplary Good Services Badge” প্রাপ্ত হোন। দীর্ঘ প্রায় ২ বছর তিনি ফরিদপুর ও রাজবাড়ী অঞ্চলের মাদক,সন্ত্রাস ও চরমপন্থীদের আতংক হিসেবে আবির্ভুূত হোন।এরপর তিনি স্বল্প সময়ের জন্য মাদারীপুর ক্যাম্পের(মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও গোপালগঞ্জ জেলা) কোম্পানি অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ গত প্রায় ৭ মাস যাবত পটুয়াখালী ক্যাম্পের(পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলা)কোম্পানি অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।দেশমাতৃকার প্রতি গভীর মমত্ববোধে দীক্ষিত, চরম দায়িত্বশীল এই পুলিশ কর্মকর্তা স্বপ্ন দেখেন একটা বৈষম্যহীন, সুশৃঙ্খল সমাজ ব্যবস্থার, গাইতে চান মানবতার চরম জয়গান।