বরগুনায় ইউপি চেয়ারম্যানের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অভিযোগ

বরগুনার আমতলীতে জাটকা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা জেলেদের মধ্যে চাল বিতরণ নিয়ে ফেইসবুকে অসত্য তথ্য দিয়ে আমতলী সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মোতাহার উদ্দিন মৃধার ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
অভিযোগে জানা গেছে, আমতলী সদর ইউনিয়নে বিভিন্ন ক্যাটাগরির সর্বমোট ৫৩৪ জন তালিকাভূক্ত জেলে রয়েছে। এর মধ্য থেকে শুধুমাত্র ইলিশ আহরনে বিরত থাকা ২৯০ জন জেলে ৪ মাস (ফেব্রুয়ারী থেকে মে) পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিমাসে জনপ্রতি ৪০ কেজি করে বিশেষ ভিজিএফ চাল পেয়ে থাকেন। ৪ মাসে একেক জন জেলে ১৬০ কেজি করে চাল পেয়ে থোকেন। গত বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) এই তালিকাভূক্তি অনুযায়ী জেলেদের মাঝে দুই মাসের (ফেব্রুয়ারী ও মার্চ) বরাদ্ধকৃত চাল ট্যাগ অফিসার উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা সৈয়দ ফারুক হোসেন উপস্থিতিতে সঠিকভাবে বিতরণ করা হয়েছে। কিন্তু জেলেদের চাল বিতরণ নিয়ে সম্পূর্ন অসত্য, বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে ও বেশ কয়েকজন জেলের বক্তব্য রেকর্ড ও ভিডিও করে এম আলাউদ্দিন মীর নামে একটি ফেইসবুক আইডিতে ছেড়ে দিয়েছে। ভিডিওতে চাল পায়নি ও চেয়ারম্যান তাদের চাল দেয়নি বলে যারা বক্তব্য দিয়েছে তারা সকলেই সদর ইউনিয়নের বাসিন্ধা ও তালিকাভূক্ত জেলে। তবে তারা কেহই জাটকা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা জেলে না। শুধু জাটকা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা জেলেরাই কেবল সরকারের বিশেষ ভিজিএফ চাল সহায়তা পাচ্ছেন। আর যারা চাল পাননি তারা মিথ্যা অসত্য তথ্য দিয়ে সমাজে ও ইউনিয়নের জনসাধারণের কাছে ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন বলে সাংবাদিকদের কাছে ইউপি চেয়ারম্যান অভিযোগ করেন।
এ বিষয়ে আমতলী সদর ইউনিয়নের ট্যাগ অফিসার সৈয়দ ফারুক হোসেন মুঠোফোনে বলেন, আমতলী সদর ইউনিয়নে জাটকা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা ২৯০ জন জেলের মাঝে আমার উপস্থিতিতে সঠিকভাবে চাল বিতরণ করা হয়েছে।
উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার মোঃ মাহবুবুর রহমান জানান, আমতলী সদর ইউনিয়নে ইলিশ আহরনে বিরত থাকা ২৯০ জন জেলের মাঝে দুই মাসের (ফেব্রুয়ারী মার্চ) জনপ্রতি ৮০ কেজি চাল বিতরণ করা হয়েছে।
আমতলী সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মোতাহার উদ্দিন মৃধা বলেন, আমার ইউনিয়নে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ৫৩৪ জন তালিকাভূক্ত জেলে রয়েছে। এই জেলেদের সকলেই ইলিশ মাছ ধরার জেলে না। এ তালিকার যারা প্রকৃত ইলিশ মাছ ধরার জেলে তাদের মধ্য থেকে ২৯০ জনকে বাচাই করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, মহামারী করোনাভাইরাসের কারনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অসহায়, হতদরিদ্র ও কর্মহীন বাকী জেলেদের মাঝে পর্যায়ক্রমে চাল বিতরণ করা হয়।
মো.মিজানুর রহমান নাদিম