হয়তো কখনো আর স্বাভাবিক হবে না পৃথিবী: ফাউসি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি স্টিফেন ফাউসি বলেছেন, পৃথিবীতে হয়তো আর কখনও স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসবে না।

এমনকি মহামারী পরিস্থিতি কেটে গেলেও। তিনি আরও বলেছেন, যতদিন না করোনার বিরুদ্ধে একটা কার্যকর ভ্যাকসিন তৈরি হচ্ছে এবং জনগণকে সম্পূর্ণভাবে রক্ষা করা না যাচ্ছে ততদিন স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরবে না।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন ফাউসি। এর আগে এক বিবৃতিতে ফাউসি বলেন, করোনাভাইরাস সহজে বিলুপ্ত না হয়ে মৌসুমি ফ্লুর প্রকৃতি ধারণ করে বারবার ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। খবর আলজাজিরার।

বিশ্ব মহামারী করোনা এই মুহূর্তে পৃথিবীর সব অঞ্চল ও দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে চলছে লকডাউন। তিনশ’ কোটির বেশি মানুষ ঘরবন্দি।

অর্থনীতি ধসে পড়ছে। বিশ্বজুড়ে বিরাজ করছে এক অস্বাভাবিক অবস্থা। সংক্রমণ ও মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে। কোভিড-১৯ রোগীদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন দেশটির ডাক্তার-নার্সরা।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের হিসেবে মতে, আগামী আগস্ট পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ৮১ হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে করোনাবিষয়ক বিজ্ঞানী ফাউসি বলেন, দেশে দেশে হয়তো ধীরে ধীরে পরিস্থিতির উন্নতি হবে।

করোনা-পূর্ব স্বাভাবিক অবস্থায় আর ফিরতে পারবে না। তিনি বলেন, ‘আপনি যদি করোনা-পূর্ব অবস্থায় ফিরে যেতে চান, সেটা সম্ভবত আর কখনও নাও ঘটতে পারে।’

এ কথার ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরা’ মানে করোনা সংকট নেই- এমন একটা অবস্থা।

এরপর তিনি বলেন, যতক্ষণ না আমাদের সব জনগণকে রক্ষা করার মতো সক্ষমতা বা পরিস্থিতি তৈরি হবে, আমার মনে হয় না সেটা আর কখনও সম্ভব হবে। তবে শেষ পর্যন্ত একটা কার্যকর করা গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে।’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় অ্যালার্জি ও সংক্রামক রোগ ইন্সটিটিউটের পরিচালক ফাউসি এর আগেও করোনা নিয়ে হুশিয়ারি দিয়েছেন।

চলতি সপ্তাহে তিনি বলেন, ‘এ বছর করোনাভাইরাস পৃথিবী থেকে সম্পূর্ণভাবে নির্মূল হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

মানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পরের ফ্লুর মৌসুমে এই ভাইরাস আবার নতুন করে দেখা দিতে পারে।

এটি আরও একটি সাইকেল তৈরি করতে পারে।’ এই ভাইরাস আবার নতুন করে ফিরে আসার সম্ভাবনা থাকলেও যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুতিতে আগের চেয়ে ভালো করতে কাজ করছে জানিয়ে ফাউসি বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি ভ্যাকসিন তৈরির কাজ শেষ হয়েছে এবং এর ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালও শুরু হয়েছে।

ট্রায়াল শেষ হলেই নতুন ওষুধের চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রক্রিয়া হস্তান্তর পরিচালনা শুরু করা হবে।’ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, নতুন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের গতি ধীর করার সময় আসেনি।

এখনই কঠোর পদক্ষেপ থেকে সরে আসা যাবে না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র ক্রিস্টিনা লুদ্যমেয়ার এক ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর একটি হল- এখনই কঠোর পদক্ষেপ থেকে সরে আসা যাবে না। এটা অনেকটা সুস্থ হওয়ার আগেই বিছানা ছেড়ে উঠে যাওয়ার মতো।