আর্জেন্টিনার পর এবার অন্য ‘দেশ’ খুঁজে নেবেন হিগুয়েইন?

ফ্রেঞ্চ ও আর্জেন্টাইন নাগরিক হিগুয়েইন কি এবার শুধুই বাস্ক হয়ে ফিরবেন লা লিগায়? ক্যারিয়ারের শুরুতে মেসির বিপক্ষে রিয়ালের জার্সি পরে নামতেন। বার্সেলোনার একসময়কার প্রবল প্রতিপক্ষের জার্সিতেও হিগুয়েইনকে দেখা গেলে মন্দ হয় না!
আর্জেন্টিনার জার্সিতে তাঁকে আর দেখা যাবে না। ২০১৮ বিশ্বকাপে শেষ ষোলো থেকে বাদ পড়ার পরই অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন গঞ্জালো হিগুয়েইন। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে প্রশংসার চেয়ে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের কাছ থেকে দুয়োই বেশি শুনতে হয়েছে তাঁকে। এ কারণে বিদায় বেলায় ক্ষোভও জানিয়েছেন। বিদায় বার্তায় বলেছিলেন, তাঁর জাতীয় দলে থাকা না থাকা নিয়ে আর দুশ্চিন্তা করতে হবে না কাউকে। আর্জেন্টিনার সঙ্গে সেদিনই সম্পর্কের ছেদ টেনেছেন হিগুয়েইন?

বাবা হোর্হে হিগুয়েইনের সুবাদে আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে চাপিয়েছেন। কিন্তু গঞ্জালোর সুযোগ ছিল ফ্রান্সের হয়েও খেলার। সেখানেই যে জন্ম তাঁর। কিন্তু আর্জেন্টিনায় বেড়ে ওঠা ও রিভার প্লেটের একাডেমিতে ফুটবল শিক্ষা নেওয়া হিগুয়েইন মন-প্রাণ আর্জেন্টিনাকেই দিয়ে রেখেছিলেন। তাই রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার পর ফ্রান্সের জাতীয়তা বুঝে নিলেও জাতীয় দলের জার্সি চাপানোর জন্য আর্জেন্টিনাকেই বেছে নিয়েছিলেন।

আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স যুগ্ম জাতীয়তাধারী এই স্ট্রাইকার বর্তমানে খেলছেন জুভেন্টাসের হয়ে। গত মৌসুমে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যোগ দেওয়ার পর তাঁকে ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল তুরিনের ক্লাব। তাতে ব্যর্থ হয়ে ধারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল দুবার। এ মৌসুমে নতুন কোচ সারির সুবাদে সে দুর্ভাগ্য হয়নি। রোনালদো ও পাওলো দিবালার কারণে বেশি সুযোগ না পেলেও ৮টি করে গোল ও গোলে সহায়তা করেছেন। তবু জুভেন্টাসে তাঁকে বেশি দিন দেখার সম্ভাবনা কম। এ মৌসুমেই নাকি জুভেন্টাসের সঙ্গে তাঁর চুক্তি শেষ হয়ে যেতে পারে। আর সে ক্ষেত্রে নতুন ক্লাব খুঁজে নিতে হতে পারে তাঁকে।

এ কারণেই ৩২ বছর বয়সে এসে নতুন আরেক জাতীয়তা নেওয়ার চিন্তাও জাগতে পারে হিগুয়েইনের মনে। ফ্রান্স ও স্পেনের মধ্যবর্তী বাস্ক অঞ্চলের লোকজন নিজেদের স্বকীয়তায় বিশ্বাসী। অ্যাথলেটিক বিলবাও বাস্ক অঞ্চলের স্বকীয়তার সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন। বাস্ক অঞ্চলে বড় না হওয়া বা এ অঞ্চলের শেকড় না থাকা কোনো খেলোয়াড়কে কখনো দলে নেয় না তারা। মজার ব্যাপার হিগুয়েইনের বাবার দাদা ছিলেন বাস্কের নাগরিক। পরে আর্জেন্টিনায় চলে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর শেকড় তো বাস্কেই। আর সে সুবাদে বিলবাওতে চাইলেই খেলতে পারবেন হিগুয়েইন।

এ নিয়ে একবার হোর্হে হিগুয়েইন বলেছিলেন, ‘আমার দাদা ছিলেন বাস্ক-ফ্রেঞ্চের লোক। আমার বাবা তো সব সময় বলত, তাকে শিক্ষা দেওয়া হয়েছে বাস্কের লোক কখনো স্প্যানিশ বা ফ্রেঞ্চ না, তারা শুধুই বাস্কের।’ এর মাঝেই ফ্রেঞ্চ ও আর্জেন্টিনার নাগরিক হওয়া হিগুয়েইন কি এবার শুধুই বাস্ক হয়ে ফিরবেন লা লিগায়? ক্যারিয়ারের শুরুতে মেসির বিপক্ষে রিয়ালের জার্সি পরে নামতেন। বার্সেলোনার একসময়কার প্রবল প্রতিপক্ষের জার্সিতেও হিগুয়েইনকে দেখা গেলে মন্দ হয় না!